Blogging

ব্লগিং এর জন্য গুরুত্বপূর্ণ ১৬ টি এসইও টিপস

যারা ব্লগিং নিয়ে ক্যারিয়ার গরতে চান বা ইতিমধ্যে কাজ শুরু করেছেন বা করবেন তাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় নিয়ে কথা বলব তা হল এসইও।  তাই আজ এসইও এর বিষয়ে ১৬ টি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সেয়ার করব।  তো চলুন বেশি কথা না বলে শুরু করি।

১. গেস্ট পোস্ট

গেস্ট পোস্ট সবচেয়ে বেশি কার্যকরী ভূমিকা রাখে ব্লগে ট্রাফিক বা ভিজিটর বাড়ানোর ক্ষেত্রে। আপনার ব্লগে যে ধরণের নিশ প্রোডাক্ট বা বিষয় নিয়ে পোস্ট দেন , সেই ধরণের বিভিন্ন হাই ডোমেইন ও পেজ অথরিটির ব্লগ অনলাইনে খুঁজে বের করতে হবে ,যারা আপনাকে গেস্ট পোস্ট করার সুযোগ দেবে এবং সেই সাইট থেকে লিংক নিতে দিবে । এতে করে সেই নিশ রিলেটেড সাইটের পোস্ট থেকে কিছু ভিজিটর আসার সম্ভাবনা তৈরি হবে এবং আপনার ব্লগের র‍্যাংকিং বাড়বে , ভালো একটি লিঙ্কবিল্ডিং তৈরি হবে। এছাড়া প্রয়োজনে ভালো পেইড গেস্ট পোস্টিং করতে পারেন ।

২. ব্লগ কমেন্ট

ব্লগ কমেন্ট করে সাইটের জন্যে ডু ফলো এবং নো ফলো ব্যাকলিংক নেয়া যায় । আপনার ব্লগ রিলেটেড বিভিন্ন হাই অথরিটির বিভিন্ন ব্লগের পোস্টে কমেন্ট করে লিংক নেয়া যায় । কারণ অনেকেই আপনার কমেন্ট পড়ে আপনার নাম দিয়ে যে লিংক তৈরি করে গেছেন অন্য ব্লগে সেখানে ক্লিক করে আপনার সাইটে আসবে ।

৩. সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে শেয়ার

সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে বর্তমান সময়ে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের কাছে। আপনি আপনার নিজ ওয়েব ব্লগ সাইটটির পোস্ট আপনার নিজস্ব সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট একাউন্ট থেকে আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করতে পারেন বা সোশ্যাল সাইটে আপনার ওয়েবসাইটের নামে করা পেজ থেকে পেইড শেয়ার করতে পারেন। আপনার পোস্ট যদি ভাইরাল হয় , তবে অনেক ইউনিক ভিজিটর পাবেন আপনার সাইটে , যারা পরবর্তীতে আপনার ব্লগের নিয়মিত পাঠক হয়ে যেতে পারেন। কিছু সোশ্যাল নেটওয়ার্ক সাইট -যেমনঃ ফেসবুক , টুইটার, লিংকডইন ইত্যাদি ।

৪. ফোরাম পোস্ট ও কমেন্ট

ফোরামে বিভিন্ন দরকারি বিষয় নিয়ে আলোচনা করা যায় ।বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রশ্ন এবং উত্তর দেয়া যায় এবং এর থেকে ডু ফলো লিংক নেয়া যায় ।যা অনলাইনের অন্যান্য সাইট থেকে আপনার ওয়েবসাইটের অবস্থান ভালো করার ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখে । V7nForum, Digital point Forum ইত্যাদি ফোরামে পোস্ট করা যায় ।

৫. ইমেইল আউটরিচ

ই-মেইল এর মাধ্যমে প্রমোশন করতে পারেন ব্লগ এর বিভিন্ন পোস্টসমূহ ,এবং আপনার ব্লগে সাবস্ক্রাইব সিস্টেম রাখতে পারেন , যাতে করে যারা আপনার ব্লগ সাইটের পোস্টগুলো বিষয়ে আপডেট পেতে পারে । এভাবে যেভাবে অনেক ই-মেইল এড্রেস নতুন পাচ্ছেন , ঠিক

ব্লগিং এর জন্য গুরুত্বপূর্ণ১৬ টি এসইও টিপস

৬. সার্চ ইঞ্জিন সাবমিট

গুগল , বিং এর মতন বিভিন্ন জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিনে আপনার ব্লগ সাবমিট করতে পারেন । কারণ অনেক সময় সার্চ ইঞ্জিনগুলো থেকে আপনার ব্লগ পোস্টের কিওয়ার্ড ধরে অনেক নতুন ভিজিটর আপনার সাইটে আসার সুযোগ সৃষ্টি হবে।

৭. সোশ্যাল বুকমার্কিং শেয়ার

Digg, StumbleUpon প্রভৃতি মতন সো

যারা ব্লগিং নিয়ে ক্যারিয়ার গরতে চান বা ইতিমধ্যে কাজ শুরু করেছেন বা করবেন তাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় নিয়ে কথা বলব তা হল এসইও।  তাই আজ এসইও এর বিষয়ে ১৬ টি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সেয়ার করব।  তো চলুন বেশি কথা না বলে শুরু করি।

৮. ভিডিও শেয়ারিং

ইউটিউব, ভিমিও এর মতন জনপ্রিয় ভিডিও শেয়ারিং সাইটগুলোতে ব্লগের সাথে সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ভিডিও শেয়ার করা যায় ব্লগ সাইটের নাম অনুযায়ী ভিডিও চ্যানেল করে। এতে করে যেসকল ব্যক্তি ব্লগ সাইটে ভিজিট করতে চায় , তারা খুব সহজে চ্যানেল থেকে লিংক ফলো করে ব্লগে যেতে পারবে। ভিডিও অনেক জনপ্রিয়তা পেলে অনেক ট্রাফিক তৈরি হবে,এভাবে ব্লগে নতুন ভিজিটর আনা যাবে ।

৯. আর্টিকেল সাবমিশন

ব্লগে ভিজিটর আনতে বর্তমান সময়ে অন্যতম জনপ্রিয় একটি উৎস হচ্ছে আপনার ওয়েব ব্লগের পোস্টসমূহ বিভিন্ন আর্টিকেল সাবমিশন সাইটে সাবমিট করা। Articlesphere , Ezine এর মতন আর্টিকেল সাবমিশন সাইটে ব্লগের জনপ্রিয় পোস্ট সাবমিট করলে ,তা পাঠকদের কাছে সুন্দর লাগলে পাঠকরা আপনার ব্লগে আসবে । এছাড়া আপনার ব্লগ পোস্ট অনেক সোশ্যাল সাইটে শেয়ার হবে , এতে করে দ্রুত ট্রাফিক তৈরি হবে এবং ব্লগের র‍্যাংকিং ভালো হবে ।

১০. পিপিসি এড

Pay per click বা পিপিসি এর মাধ্যমে নিশ প্রোডাক্ট কিওয়ার্ড টার্গেট করে ক্রেতার কাছে পৌঁছানোর জন্যে পেইড বিজ্ঞাপন দেয়া যায়। এতে পিপিসির মাধ্যমে অন্য সাইট থেকে বেশি ওয়েব ট্রাফিক পেতে হলে খরচ করতে হবে ।

১১. ডিরেক্টরি সাবমিশন

ওয়েবসাইটকে বিভিন্ন ওয়েব ডিরেক্টরিতে নিশ ক্যাটাগরি অনুযায়ী সাবমিশন করা যায় । DMOZ , Pegasus ,Worldweb-directory এরকম আরও অনেক ওয়েব ডিরেক্টরি আছে।

১২. ফটো শেয়ারিং

ফটোবাকেট, ফ্লিকার এর মতন বিভিন্ন ফটো শেয়ারিং সাইটে ওয়েবসাইট ব্লগের ছবি শেয়ার করা যায় , এধরণের বিভিন্ন সাইটে অনেক ভিজিটর আসে । যেখান থেকে অনেক ভিজিটর আপনার ব্লগের জন্যে পেতে পারেন ।

১৩. লিংক বিনিময়

বিভিন্ন ওয়েবসাইটের সাথে আলোচনা করে ওয়েব লিংক শেয়ার করা যায় । এখানে অনেকগুলো ওয়েবসাইট প্রয়োজন হবে, সরাসরি এক ওয়েবসাইট থেকে আরেক ওয়েবসাইট থেকে লিংক না নিয়ে বেশ কিছু ওয়েবসাইটের চেইন বিল্ডআপ করে লিংক বিনিময় করতে হবে । তাহলে গুগল এলগোরিদমেও সমস্যায় পরতে হবেনা।

১৪. ডকুমেন্ট শেয়ারিং

ওয়েবসাইটের বিভিন্ন তথ্য সমৃদ্ধ ডকুমেন্ট , ব্যবসায়িক ডকুমেন্ট প্রভৃতি জনপ্রিয় ডকুমেন্ট শেয়ারিং সাইটে যেমন- Slideshare, Issuu ইত্যাদিতে শেয়ার করা যায় ।

১৫. রেফারেন্স লিংক

বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে প্রয়োজনীয় অনেক তথ্য প্রয়োজন পরে , সেইসব তথ্য বিভিন্ন বিষয়ের ওপর রিসার্চ করা তথ্য হতে পারে । এরকম তথ্য দিয়ে কোন ওয়েবসাইটের কোন আর্টিকেল তৈরি করার ক্ষেত্রে আপনার সাইট সাহায্য করতে পারে । এতে সে আর্টিকেল থেকে আপনি রেফারন্স লিংক পেতে পারেন

১৬. প্রেস রিলিজ শেয়ার

ওয়েবসাইটের ব্লগে কিছু প্রেস রিলিজ করা যায় এবং বিভিন্ন প্রেস রিলিজ সাইটে শেয়ার করা যায়। ওপেন পিআর, পিআরলিপ এর মতন বিভিন্ন ওয়েবসাইটে প্রেস রিলিজ দেয়া যায়।

তেমনি অনেক সময় ধরে কিছু পাঠক পাবেন । মেইলচিম্প এর মতন অনেক ইমেইল সার্ভিস প্রতিষ্ঠানের সেবা গ্রহণ করে ইমেইল পাঠাতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button